বাংলাদেশের জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার- 1.৩২

বাংলাদেশের জনসংখ্যার ঘনত্ব- ৯৯০জন ।

দারিদ্র সীমার নিচে বসবাসকারী- ৪০%

বাংলাদেশের সবচেয়ে বেশি ও কম দারিদ্র বাস করে- কুষ্টিয়া।

বাংলাদেশের অবস্থান জনসংখ্যায়-
বিশ্বে-                   ৭ম
মুসলিম বিশ্বে-         ৩য়
দক্ষিণ এশিয়ায়-      ৩য় (সার্কভূক্ত দেশেও)
এশিয়ায়-               ৫ম

বাংলাদেশের সবচেয়ে কম ঘনবসতিপূর্ণ এলাকা- বান্দরবন

আয়তনে বাংলাদেশ বিশ্বে- 91 তম|

উপমহাদেশে প্রথম আদমশুমারী লর্ড ক্যানিং এর সময়ে (১৮৬১ সালে)।

বাংলাদেশে আদমশুমারী হয় পাঁচটি- ১ম- ১৯৭৪, সর্বশেষ -২০১১ সালে {১৫-১৯মা‍র্চ}

ম্যালথাসের মতে জনসংখ্যা বাড়ে- জ্যামিতিক হারে।

ঢাকা বিশ্বের কততম মেগা সিটি- ২০তম ।

বাংলাদেশে কিশোর অপরাধ (৭-১৬ বছর) কেন্দ্র অবস্থিত- গাজীপুর জেলার টঙ্গীতে।

বাংলাদেশ কিশোরী সংশোধণ কেন্দ্র- গাজীপুরের কোণাবাড়িতে।

বাংলাদেশ মোট উপজাতি- ৪৫ টি ।

বাংলাদেশের মাতৃতান্ত্রিক উপজাতি গারো (খাসিয়া ও সাঁওতাল) পিতৃতান্ত্রিক উপজাতি- মারমা ও হাজং।

চাকমাদের বর্ষবরণকে বলা হয়- বিছু।

কোন উপজাতিরা মুসলমান- পাঙন উপজাতি।

বৈসাবি হচ্ছে- পাহাড়ি উপজাতিদের বর্ষবরণ।

রাজবংশি, ওরাও, সাঁওতাল বাস করে- রংপুর জেলায়।

মৌয়ালীরা বাস করে- সুন্দরবনে।

রাখাইনরা বাস করে- পটুয়াখালী।

বাংলাদেশে উপজাতিদের জন্য কয়টি সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান আছে- তিনটিঃ
১। উপজাতীয় সাংস্কৃতিক একাডেমী বিরিশিরি (নেত্রকোনা)।
২। ট্রাইবাল কালচার একাডেমি (দিনাজপুর)।
৩। ট্রাইবাল কালচার ইনস্টিটিউট, (রাঙ্গামাটি)।

বাংলাদেশে যে উপজাতিদের বাস নেই- মাওরী, মুর, পিগমী, নিগ্রো, জুলু, কুর্দী, আফ্রিদী, টোপ, শেরপা ইতাদি।

বণিকদের বিরুদ্ধে কোন চাকমা নেতা বিদ্রোহ করেন- চাকমা নেতা জুম্মা খান।